প্রতিদিন ২টি লবঙ্গ খেলে শরীরে যে পরিবর্তনগুলো দেখতে পাবেন

লবঙ্গ মূলত ইন্দোনেশিয়ার চিরহরিৎ ক্লোভ গাছের সুগন্ধযুক্ত গোলাপী ফুলের অপ্রস্ফুটিত কুসুম। এরা পৃথিবীর অন্যতম জনপ্রিয় মসলা। খাবারে মিষ্টি স্বাদ আনার বাইরেও এর রয়েছে অসংখ্য ঔষধিগুণ।এই মসলাটি প্রতিদিন মাত্র ২টি করে খেয়ে শরীরে যে পরিবর্তনগুলো দেখতে পাবেন তার একটি তালিকা আপনাদের সামনে হাজির করতে যাচ্ছি। আসুন দেখে নেই পরিবর্তন সমূহ।

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

লবঙ্গ আমাদের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থায় আরো শক্তি যোগ করতে সক্ষম, কারণ তারা রক্তের শ্বেত কণিকা বৃদ্ধি করে, যা রোগ জীবাণু এবং ইনফেকশনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে বিশেষ পারদর্শী। এর ভিটামিন সি কে এজন্য ধন্যবাদ না জানালে ভুল হবে।

২. হজম শক্তি বাড়ায়

হজমের গণ্ডগোল সারিয়ে তুলতে ওষুধের মতো কাজ করে লবঙ্গ। এরা পাচক রসের ক্ষরণ বাড়িয়ে পেটের সমস্যা দূর করে। গা-গোলানোভাব দূর করতেও এর জুড়ি নেই। কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর করতে এর রয়েছে বিশেষ ভূমিকা।

৩. দাঁত ব্যথা কমায়

এতে রয়েছে ব্যথা দূর করার বিশেষ উপাদান। যদি আপনার দাঁত ব্যথা শুরু হয়, ডেন্টিস্টের কাছে যাওয়ার আগ পর্যন্ত এক টুকরো লবঙ্গ আক্রান্ত দাঁতের উপর দিয়ে রাখুন। এতে অসহ্য ব্যথা কমতে শুরু করবে।

৪. যকৃত সুস্থ রাখে

আমাদের দেহের দূষিত পদার্থ দূর করা এবং যেসব ওষুধ গ্রহণ করি সেসব মেটাবোলাইজ করা লিভারের অন্যান্য কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম। নিয়মিত লবঙ্গ খেলে যকৃতের এই কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকে। ফলে যকৃত থাকে সুস্থ, শরীর থাকে বিষমুক্ত।

৫. শরীরের ব্যথা এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে

ব্যথা এবং প্রদাহ নিরাময়ে লবঙ্গে রয়ে অ্যানালজেসিক এবং অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান। তাই মাথা ব্যথা শুরু হলে লবঙ্গ চা খেলে তা দ্রুত চলে যায়। আর শরীরের কোথাও আঘাত পেলে সেখানে লবঙ্গ দিয়ে গরম করা নারিকেল তেল মালিশ করলে দ্রুত ব্যথা কমে যায়।

৬. হাড় এবং জয়েন্টের জন্য খুব উপকারি

লবঙ্গে রয়েছে ফ্লাভোনয়েড, ম্যাঙ্গানিজ এবং ইউজেনল নামক উপাদান যা হাড় এবং জয়েন্ট সুস্থ রাখে। এই উপাদানগুলো হাড়ের ঘনত্ব বাড়ায় এবং হাড়ে যথাযথ পুষ্টি উপাদান পৌঁছে দেয়।

৭. ব্যাকটেরিয়া থেকে দূরে রাখে

লবঙ্গ কিছু মারাত্মক ব্যাকটেরিয়া যেমন ই কোলাই এবং স্টেফাইলোকক্কাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম। তাই মুখের জীবাণু দূর করতেও এরা খুব পারদর্শী। মাত্র ২১ দিন নিয়মিত লবঙ্গ, টি ট্রি অয়েল এবং পুদিনা দিয়ে তৈরি ভেষজ মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করলে মুখের দীর্ঘদিনের দুর্গন্ধ এবং রোগ জীবাণু দূর হয়ে যায়।

৮. অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর

লবঙ্গে রয়েছে অসাধারণ গুণে ভরা পলিফেনল। শরীরের জন্য এই উপাদানটি ১৫০টিরও বেশি কাজে লাগে। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামাটরি ও এর ক্যান্সার প্রতিরোধী গুণ রয়েছে এর। এটি রক্তের কোলেস্টেরল কমায় এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।

৯. রক্তের চিনি নিয়ন্ত্রণ করে

যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে লবঙ্গ তাদের দেহে ইনসুলিনের মতো কাজ করে। এর রাসায়নিক উপাদান রক্তের চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ রাখে।

১০. রক্ত জমাট বাঁধার গতি কমিয়ে দেয়

লবঙ্গের বিশেষ উপাদান ইউজেনল রক্ত জমাট বাঁধার গতি কমিয়ে দেয়। মনে রাখবেন রক্ত পাতলা করার ওষুধের সাথে এর খারাপ সম্পর্ক রয়েছে। তাই যারা হৃদরোগে আক্রান্ত তারা ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে লবঙ্গ খাবেন।আপনি কি লবঙ্গ খেতে পছন্দ করেন? খাবারের মধ্যে লবঙ্গ পেলে কি আপনি বিরক্ত হন? জানান আমাদের নিচের কমেন্ট বক্সে।

You may also like...

মন্তব্য করুন